July 30, 2021, 2:10 pm

creativesoftbd.com
শিরোনামঃ

ব্রাজিলকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল আর্জেন্টিনা

স্পোর্টস ডেস্ক

অপেক্ষার অবসান ঘটল অবশেষে। ২৮ বছর পর মেজর কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা উঠল আর্জেন্টিনার হাতে। সেই সঙ্গে লিওনেল মেসির হাতেও উঠলো প্রথম আন্তর্জাতিক কোনো শিরোপা। টানা চারটি ফাইনাল হারের পর অবশেষে কোপা আমেরিকা ২০২১ এ স্বাগতিক ব্রাজিলকে ১-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তুলল আর্জেন্টিনা। আলবেসিলেস্তেদের হয়ে জয়সূচক গোলটি করেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া।

ম্যাচের ২০ মিনিটে মধ্যমাঠ থেকে রদ্রিগো ডি পল লং বল বাড়িয়ে দেন ডান দিকে থাকা ডি মারিয়ার উদ্দেশে। ব্রাজিলের বাঁ দিকের রক্ষণে থাকা রেনান লোদির হালকা স্পর্শে বল পেয়ে যান ডি মারিয়া। এরপর বল নিয়ে একাই ঢুকে পড়েন ডি-বক্সে। মারিয়াকে বল নিয়ে এগিয়ে আসতে দেখে গোললাইন ছেড়ে এগিয়ে যান ব্রাজিল গোলরক্ষক এডারসন। আর তাকে এগিয়ে আসতে দেখেই মাথার ওপর দিয়ে ফ্লিক করে বল জালে জড়ান ডি মারিয়া।

আর ডি মারিয়ার এই গোলটিই ব্যবধানে গড়ে দেয় ম্যাচের। আর অবসান ঘটে আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের অপেক্ষার। ১৯৯৩ সালের পর এই প্রথম মেজর কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপা ঘরে তুললো আর্জেন্টিনা। এর আগে ২০০৭ সালে ব্রাজিলের বিপক্ষে আর ২০১৫ ও ২০১৬ সালে চিলির কাছে হারলেও এবারে আর পথভ্রষ্ট হয়নি লিওনেল মেসিরা। টানা চারটি ফাইনালে হারের পর অবশেষে লিওনেল মেসির হাতে উঠলো আন্তর্জাতিক শিরোপা।

ঐতিহাসিক মারাকানায় ম্যাচের শুরু থেকেই বল দখলে দুই দলের আধিপত্য ছিল প্রায় সমানে সমান। আক্রমণেও তাই। তবে প্রথম ২০ মিনিট পর্যন্ত ব্রাজিলের আক্রমণভাগে হানা দিতে পারেনি আর্জেন্টিনা। বরং ব্রাজিল ভীতি ছড়িয়েছে। ম্যাচে ফাউল করে খেলার প্রবণতাও ছিল বেশি।

২০০৪ সালে সিজার দেলগাদো সবশেষ আর্জেন্টিনার হয়ে ফাইনালে গোল পেয়েছিলেন। এবার দীর্ঘ ১৭ বছর পর ডি মারিয়া গোল পেলেন। এরপর ২৯ মিনিটে দি মারিয়ার শট রক্ষণে এসে বাধাপ্রাপ্ত হলে ব্যবধান বাড়ানো যায়নি। ব্রাজিল গোল শোধে হানা দিয়েছে। নেইমার-পাকুয়েতারা চেষ্টা করেছেন। কিন্তু গোলরক্ষক মার্টিনেজকে বড় পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি।

আর্জেন্টিনার ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থাকার মধ্য দিয়ে প্রথমার্ধস শেষ হয়। এরপর বিরতি থেকে ফিরেই ফ্রেডকে তুলে ফিরমিনহোকে মাঠে নামান ব্রাজিল কোচ তিতে। আর তাতেই বাড়ে আক্রমণের ধার।

ম্যাচের ৫২ মিনিটে রিচার্লিসন গোল করে ছিলেনও। কিন্তু অফসাইডের ফাঁদে পড়ে তা বাতিল হয়ে যায়। ৫৫ মিনিটে দুর্দান্ত আরেকটি সুযোগ তৈরি করে ব্রাজিল। ডান দিক থেকে নেইমার জুনিয়র দারুণ এক বল দিয়েছিলেন রিচার্লিসনের উদ্দেশে। তবে তাঁর নেওয়া দুর্বল শটটি সহজেই রুখে দেন এমি মার্টিনেজ।

৬৫ মিনিটে মার্কুইনেসের ভুলে বল নিয়ে ব্রাজিলের ডি-বক্সে ছুটেছিলেন মেসি। ব্যবধান বাড়ানোর দারুণ সুযোগ পেলেও শেষ পর্যন্ত ব্রাজিলের রক্ষণের দৃঢ়তায় আর মেসিকে গোল করে দেয়নি। সময় যত গড়াচ্ছিল ব্রাজিলের আক্রমণের ধার ততই বাড়ছিল। তবে কিছুতেই আর্জেন্টিনার রক্ষণে ফাটল ধরাতে পারছিল না সেলেসাওরা।

ম্যাচের ৭১তম মিনিটে নেইমারের কল্যাণে আরও একটি গোলের সুযোগ তৈরি হয়। কিন্তু ডি-বক্সে বল পেয়ে শট নিতে পারলেও তা লক্ষ্যে রাখতে পারেননি লুকাস পাকুয়েতা। এরপর ম্যাচের ৭৩ মিনিটে বাম প্রান্ত দিয়ে গোলের চেষ্টা করেছিলেন আকুনা। কিন্তু মাটি গড়ানো তার শট সরাসরি চলে যায় ব্রাজিল গোলরক্ষকের কাছে।

এরপর ম্যাচের শেষ ১০ মিনিটে দারুণ সব আক্রমণ করতে থাকে ব্রাজিল। কিন্তু ডি-বক্সের ভেতর এসেই রুখে থাকতে হয়েছে তাদের। আর গোলপোস্টের নিচে থাকা এমি মার্টিনেজের দুর্দান্ত সেভে শেষ পর্যন্ত অক্ষত থাকে জাল। ৮৩তম মিনিটে পেজ্জেল্লার বারবোসোর শট নেওয়ার ঠিক আগ মুহূর্তে বল ক্লিয়ার করেন। আর তাতেই কর্নার জিতে নেয় ব্রাজিল কর্নার থেকে নেইমারের ভাসানো বল পেয়ে ২৫ গজ দূর থেকে শট নেন দানিলো। তবে তা গোলপোস্টের উপর দিয়ে বেরিয়ে গেলে বিপদমুক্ত হয় আলবেসিলেস্তেরা।

৮৭তম মিনিটে আর্জেন্টিনা গোলরক্ষক মার্টিনেজ যেন ম্যাচ জেতানো সেভটি করে বসেন। নেইমারের পাস ডিফ্লেক্টেড হয়ে গ্যাব্রিয়েল বারবোসার কাছে গেলে তিনি শট নেন ডি-বক্সের ডান দিক থেকে। তাঁর নেওয়া ভলি শট লাফিয়ে উঠে ঘুষিতে ডি-বক্সের উপর দিয়ে বল ঠেলে বিপদমুক্ত করেন। আর তাতেই আর জালে দেখা পায়নি ব্রাজিল।

শেষ পর্যন্ত ওই অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়ার করা ওই একমাত্র গোলেই ২৮ বছর পর কোপা আমেরিকার শিরোপা ঘরে তুললো লিওনেল মেসিরা।

creativesoftbd.com

     আজকের খবর বিডি কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  

জরুরি সেবা ফোন নাম্বার