June 23, 2021, 10:03 pm

creativesoftbd.com

মৌলভীবাজারে নিরলস ভাবে চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন গরীবের ডাক্তার ইয়াহিয়া

এম.এ রুমান আহমেদঃ মৌলভীবাজার শহরের এম সাইফুর রহমান রোডস্ত মালিকা ড্রাগ হাউজ গরীবের ডাক্তার নামে খ্যাত অর্জন করেছেন ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়া।
প্রতিদিন সকাল ০৮: ঘটিকা থেকে উনার ফার্মেসীতে অনেক রুগীর একাংশ দেখা যায়।
মধ্যবিত্ত পরিবার থেকে শুরু করে সবাই ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়ার কাছে শিশু রোগী দেখার জন্য নিয়ে আসেন। প্রায় সারাদিন অসংখ্য রোগীদের ভির দেখা যায়।
প্রায় সকল মায়েরা শিশুদের নিয়ে আসেন সেখানে ডাক্তার দেখানোর জন্য।
কিছু ডাক্তার দেখানো মানুষের সাথে আলাপ করে জানা যায়, তাহার বলেন তাদের শিশুদের অসুখ হলে ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়ার কাছে নিয়ে আসেন। উনি বাচ্চাদের দেখে যে ঔষধ দেন বাচ্চারা সুস্থ হয়ে যায়। সবাই বলেন তিনি গরিবের ডাক্তার। তিনি রোগী দেখে কোন নির্ধারিত ভিজিট নেননি। যার যত মন চায় তাই দিয়া দেয়। অনেক অসহায় গরীব রোগীদের কাজ থেকে তিনি কোন টাকা নেননি।
(১৭ জুন) বুধবার সকাল ৯: ঘটিকায় ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়া’র চেম্বারে সাক্ষাৎকার করলে তিনি জানান, সারাবিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশে মাহামারী করোনা ভাইরাসের কারনে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আগের মতো চিকিৎসা দিয়ে আসছি, প্রতিদিন ৫০/৬০ জন শিশুদের চিকিৎসা দিতে হচ্ছে। আমি সবাইকে বলবো আপনারা সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। ইনশাআল্লাহ আমরা সকল সংকট কেটে উঠে ঘুরে দাঁড়াবো আগের মতো। আমি সবসময় রোগীদের যে ভাবে সেবা দিয়ে আসছি আগামীতেও সেবা দিয়ে যাবো। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।
ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়া একজন সাদামাটা জীবনের অধিকারী বর্তমানে মৌলভীবাজারে এমন ডাক্তার আর দেখা যায়না। সাদা মনের আল্লাহ ভীরু নামাজি ব্যক্তি।
তাহার, গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজার সদর কনকপুর ইউনিয়নের শাহবন্দর গ্রামে। যার শৈশব কেটেছে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার আখাইলকুড়া ইউনিয়নের  মিরপুর গ্রামের নানার বাড়িতে। ছাত্রজীবনে নিজ বাড়ি থেকে লেখাপড়া করেছেন। মধ্যবৃত্ত পরিবারে জন্ম নেয়া ডাক্তার মোহাম্মদ ইয়াহিয়া, আজ মৌলভীবাজারবাসীর কাছে গরিবের ডাক্তার  মোহাম্মদ ইয়াহিয়া বলে পরিচিত।
তাহার পরিবারের সবাই উচ্চ শিক্ষিত।

creativesoftbd.com

     আজকের খবর বিডি কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  

জরুরি সেবা ফোন নাম্বার