June 23, 2021, 11:19 pm

creativesoftbd.com

সদ্য প্রয়াত যুবদল নেতা মতিনকে নিয়ে সহপাঠী’র হ্রদয় বিদারক স্মৃতি কথা।

 

এবাদুল হকঃ নব্বইয়ের দশকে স্কুলে পড়াকালীন সময়ে একটি ছেলে ভর্তি হলো।পায়ে শরীর ঝুকে ঝুঁকে হাঁটত। চুল গুলো ছিল লম্বা।বিদ্যালয়ে ছিল কড়া শাসন।একদিকে ওয়াজেদ স্যার,আতা স্যার, নুরুল ভাইদের শাসন।তারপরেও ছিল দুরন্তপনা।আমাদের ঈদগার পাশে নিয়ে পায়ের স্ট্রেসিং দেখাতো।বলত এটা ক্যারাটে।”মতিন” নামটা দুজন থাকায় স্যাররা বিভ্রান্ত হতেন। আমাদের কোন এক সহপাটি তার নামের আগে “পোছ” সম্বোধন করে দিল।সেই থেকেই “পোছ মতিন”নামে পরিচিত।স্কুল গন্ডি ছাড়িয়ে কলেজ গন্ডি, রাজনীতি, প্রতিবাদী থাকায় বিভিন্ন সমস্যায় ঝড়ানো,কখনো বিতর্ক,কখনো অনেকের সিঁড়ি তে উঠার হাতিয়ার, এভাবেই জীবন যাচ্ছিল।ক্রীড়ানুরাগী ছিল।শহরের বাইরে তখনকার সময় কাজিরবাজার,সরকারবাজার,সেরপুরসহ তৎসংলগ্ন এলাকায় ক্রিকেট বিস্তার তার হাত ধরে বিস্তৃতি ঘটে ছিল। উত্থান, ঝরে পড়া, জীবন সংগ্রামে যুদ্ধ, সমসাময়িক পরিস্হিতি মোকাবেলা, একটি অংশে দাড়িয়ে যখন ক্ষান্ত তখন আততায়ীর হাতে করুন মৃত্যু। কষ্টকর!!একটি পরিচিত মুখ চিরতরে হারিয়ে গেল।মবশ্বির ভাইয়ের চা’স্টলে “কি কর মাস্টর” বলে হয়ত আর ডাকবে না।বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তর্কে জড়াবে না।সবারমত দুঃসহ স্মৃতিতে থাকবে।তার একটি মেয়ে আমার ছাত্রী আমাকে জড়িয়ে ধরে অঝোরে কাদঁছিল।কোন সান্ত্বনা দেবার ভাষা নাই।শুনলাম মৃত্যুর এক ঘন্টা আগে ছোট মেয়েটি বাবার কাছে আম খেতে চেয়েছিল।সেও নির্বাক।বোবা হয়ে গেছে।বাবাকে খুঁজে এক সময় ভুলে যাবে।কেন এই নির্মমতা?কি প্রতিযোগীতায় নেমেছি??আমরা প্রতিনিয়ত সমাজ বিনির্মানের কথা বলি,গরীব দুখীদের প্রিয় ভাই, আস্থার প্রতীক হিসেবে আবির্ভুত হতে চাই, চলা ফেরায় ধর্মের লেবাছ পড়ে আছি অথচ আড়ালে উদ্দেশ্য ভিন্ন। এই নির্মমতা,নিষ্টুরতার ব্যাখ্যা কিভাবে দিব?পিছনের ইন্দন দাতারা কি শান্তি পেল?যে কারো সাথে মনের মিল না থাকতেই পারে।হত্যা কি সমাধান?আজকে যে ছেলেরা আসামী তাদের কোনদিন মারামারিতে দেখিনি। এই বিশৃঙ্খল প্রতিযোগীতায় কার লাভ,কার ক্ষতি হল?পিছন থেকে কলকাঠি নাড়া হাইব্রিড কুশিলবরা বলতে পারবে।জগলুল হক মতিনের মৃত্যু সদ্য গজিয়ে উঠা সমাজপতি ও দানশীলদের (অবশ্য সকল নয়) ভুমিকা প্রশ্নবিদ্ধ ও বিতর্কিত করেছে নির্ধিদায় বলা যায়।এই হত্যা এলাকায় একটি উদাহরণ তৈরী করল।আল্লাহ সবাইকে হেদায়েত নসিব করুন।জগলুল হক মতিনকে জান্নাতবাসী করুন।আল্লাহ তার পরিবারকে ধৈর্য ধরার তওফিক দান করুন।

লেখক ঃসহপাঠি ও শিক্ষাবিদ

creativesoftbd.com

     আজকের খবর বিডি কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

  

জরুরি সেবা ফোন নাম্বার